আজ : মঙ্গলবার | ২রা শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৭ই জুলাই, ২০১৮ ইং | ৩রা জিলক্বদ, ১৪৩৯ হিজরী

লাশ দ্রুত সময়ে দেশে ফিরিয়ে আনা নিয়ে সংশয়ের সৃষ্টি

yhjgkএডিটর ডেস্ক : নেপালের ত্রিভুবন বিমান বন্দরে গত সোমবার ইউএস বাংলার উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়ে নিহত ২৬ বাংলাদেশি যাত্রীর লাশ দ্রুত দেশে ফেরা নিয়ে সংশয়ের সৃষ্টি হয়েছে। আর্ন্তজাতিক প্রক্রিয়া অনুসরণ করে ডিএনএ টেস্ট করার পর লাশ হস্তান্তর করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নেপাল সরকার। এ কারেন যাদের চেহারা দেখে লাশ সনাক্ত করা সম্ভব তাদের লাশও দ্রুত সময়ে দেশে ফিরিয়ে আনা নিয়ে সংশয়ের সৃষ্টি হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে নেপালের ডিএনএ পরীক্ষার কাজে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে সহযোগিতা করার প্রস্তাব দিলেও তাতে ইতিবাচক সাড়া মেলেনি।

এদিকে বাংলাদেশের বিমানমন্ত্রী এ এক এম শাহজাহান কামালসহ একটি প্রতিনিধিদল বুধবার নেপালের সেনাপ্রধান জেনারেল রাজেন্দ্র সেত্রির সঙ্গে বৈঠক করেন। দেশটির সেনাপ্রধান লাশ সনাক্তকরণে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছে বলে মন্ত্রীকে অবহিত করেন।

গতকাল সন্ধ্যায় নেপাল ত্যাগের আগে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী এ এক এম শাহজাহান কামাল বলেছেন, ৩-৪ দিনের মধ্যে লাশ সনাক্ত করার পর দেশে নেওয়া হবে। যদিও নেপালের সিভিল এভিয়েশন অথরিটি এবং হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের কর্মকর্তারা বলছেন লাশ সনাক্ত করতে আরও দেরি হতে পারে। প্রয়োজনে সিঙ্গাপুর অথবা মালয়েশিয়া পাঠানোর সম্ভাবনা রয়েছে।

নিহতদের স্বজনদের দাবি, তাদের এখনো প্রিয়জনের মুখ দেখতে দেয়া হযনি। নেপাল সরকার নিহতদের লাশ সনাক্তকরণে খুবই ধীরগতিতে কাজ করছে বলে তাদের অভিযোগ। অপর দিকে কাঠমান্ডুর বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত ১০ জনের মধ্যে ৪ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্টরা।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজ বিধ্বস্তের ঘটনায় নিহত ২৬ বাংলাদেশির মধ্যে ২২ জনের ময়নাতদন্ত ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। তাদের মধ্যে ৮ জনের কিছু অংশ পুড়েছে; ছবি দেখে চেনার সুযোগ আছে। তবে ১৪ জনের চেহারা কোনোভাবেই চেনা যাচ্ছে না। এ বাস্তবতায় লাশ সনাক্ত করতে আন্তর্জাতিক প্রক্রিয়া অনুসরণ করার কথা রয়েছে। এছাড়া কোনোভাবেই নেপাল সরকার লাশ হস্তান্তর করবে না বলে জানিয়েছে।

এদিকে বুধবার কাঠমান্ডুর বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূত মাশফী বিনতে শামস হতাহতদের খোঁজ নিতে হাসপাতালে যান। তখন গণমাধ্যমকর্মীদের তিনি বলেন, লাশ ফিরিয়ে নিতে আরও কয়েকদিন লাগবে। তিনি বলেন, হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগ তাকে জানিয়েছেন যাদের চেহারা বিকৃত হয়নি তাদের ৪-৫ দিনের মধ্যে সনাক্ত করা সম্ভব। তবে যাদের ডিএনএ টেস্ট করতে হবে তাদেরে জন্য অন্তত ৩ সপ্তাহ সময় লাগবে। লাশ দেশে ফেরত নেওয়ার প্রস্তুতি রয়েছে বাংলাদেশ সরকারের।

প্রসঙ্গত, ৭১ আরোহীসহ সোমবার ইউএস বাংলার উড়োজাহাজ কাঠমান্ডু অবতরণের প্রাক্কালে বিধ্বস্ত হয। সেখানে ২৬ বাংলাদেশির মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে।-দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ