আজ : বুধবার | ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৩শে মে, ২০১৮ ইং | ৮ই রমযান, ১৪৩৯ হিজরী

‘বিএনপির তর্জন গর্জন বর্ষাকালের ব্যাঙ ডাকার মতো’

Sarokএডিটর ডেস্ক : বিএনপির তর্জন-গর্জন বর্ষাকালের ব্যাঙ্গ ডাকার মতো বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং দলের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ এমপি। বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের তৃতীয় তলার কনফারেন্স লাউঞ্জে জাতীয় ডিজিটাল সড়ক পরিবহন শ্রমিক লীগ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

‘আন্দোলনের গণ জোয়ার তৈরি করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবো’ বিএনপি নেতা ড. খন্দকার মোশারফ হোসেনের এমন বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে তিনি বলেন, বিএনপির আহবানে মরা গাঙ্গে জোয়ার কখনোই আসেনি। ঈদের পরে আন্দোলন, শীতের পরে আন্দোলন, চাঁদ যেদিন বড়ো করে উঠবে সেদিন আন্দোলন, বর্ষাকালে নয় শীতকালে আন্দোলন ,তাদের এই আন্দোলন তারা কখনো করতে পারে নাই। সুতরাং বিএনপির তর্জন গর্জন হচ্ছে বর্ষাকালের ব্যাঙ ডাকার মতো।

সুপ্রিম কোর্টে হট্টগোলকারীদের বিচার হওয়া প্রয়োজন উল্লেখ করে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আইন এবং আদালতের মর্যাদা সমুন্নত রাখার স্বার্থে গতকাল যারা সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের এজলাসের সামনে হট্টগোল করেছে ।আশাকরি আদালত তাদের বিরুদ্ধে আইনগত  ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

সড়ক পরিবহণ শ্রমিক লীগের দাবীর সাথে সহমত পোষণ করে তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার বিভিন্ন ইন্সুরেন্স কোম্পানির  মাধ্যমে শ্রমিকদের জন্য গ্রুপ ইন্সুরেন্সের জোর দিচ্ছে এবং এতোদিন পর্যন্ত আপনারা  লক্ষ করেছেন প্রত্যাশার চেয়ে প্রাপ্তি বেশি হয়েছে । ইনশাআল্লাহ ভবিষ্যতেও দাবীর চেয়ে প্রাপ্তি বেশি হবে। আর অন্য দিকে ২০১৩, ১৪, ১৫ সালে আন্দোলনের নামে বাস ট্রাক শ্রমিকের উপর পেট্টোল বোমা নিক্ষেপ করেছিল বিএনপি জামাত। ঘুমন্ত ট্রাক ড্রাইভারকে জ্বালিয়ে পুড়িয়ে অঙ্গার করে দিয়েছে, চলন্ত ঘাড়িতে পেট্টোল বোমা নিক্ষেপ করেছে, শত শত বাস-ট্রাক শ্রমিককে হত্যা করা হয়েছে, দিনের পর দিন অবরোধ ডেকে শ্রমজীবি মানুষের পেটে লাথি মারা হয়েছে। আওয়ামী লীগের সরকার শ্রম কল্যাণ তহবিল গঠন করেন, শ্রমিকের মজুরি বৃদ্ধি করেন, আর বেগম খালেদা জিয়া শ্রমজীবি মানুষের উপর পেট্টোলবোমা নিক্ষেপ করে।

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সমুদ্র জয় হয়েছে এবার আকাশ জয় করতে যাচ্ছে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আমার অাসঙখা হচ্ছে বিএনপি নেতারা আবার কখন বলে উঠবেন এটি ভারতের ষড়যন্ত্র। কারণ সাবমেরিন ক্যাবল যখন বিনামূল্যে দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল তখন বেগম জিয়া বলেছিলেন দেশের গোপনীয়তা বঙ্গ হয়ে যাবে। যারা আসলে মেট্টিক পরিক্ষায় সব বিষয়ে পেল করে শুধুমাত্র উর্দু আর অংকে পাশ করে তাদের পক্ষে সাবমেরিন এবং স্যাটেলাইট বুঝা সম্ভব না। সুতরাং আজকে বিএনপির উচিৎ ছিল শেখ হাসিনাকে, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে, বাংলাদেশ সরকারকে এবং জাতিকে অভিনন্দন জানানো।

আয়োজক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক এম কে রানা ভান্ডারীর সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শ্রম ও শ্রমিককল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি মো: শুক্কুর মাহমুদ, জাতীয় শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব সিরাজুল ইসলাম, আয়োজক সংগঠনের সভাপতি গাজী আব্দুর রশিদসহ সড়ক পরিবহণ শ্রমিক লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ প্রমুখ।

Leave a Reply

আরো সংবাদ