আজ : শুক্রবার | ১লা পৌষ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং | ২৭শে রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯ হিজরী

এনায়েতপুরের শিবপুর সেতুটি বিকল : ১২ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ

IMG_20171205_005403জহুরুল ইসলাম, বেলকুচি (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি: পলেস্তরা খসে, রেলিং ভেঙ্গে ও পিলার দেবে গিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ব্যাবহার অনুপযোগি হয়ে পড়েছে সিরাজগঞ্জের তাঁত শিল্প সমৃদ্ধ এনায়েতপুরের শিবপুর-খুকনী সংযোগ সেতুটি। বিকল্প ব্যবস্থা না থাকায় প্রতিদিন শত শত শিক্ষার্থী ও তাঁত শ্রমিকসহ পথচারীদের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। এদিকে প্রায় আড়াই যুগ আগে নির্মীত এ সেতুটি সংস্কার কিংবা অপসারন করে দ্রুত নতুন সেতু নির্মানের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানসহ ১২টি গ্রামের কয়েক হাজার বাসিন্দা।

স্থানীয়রা জানায়, করতোয়ার শাখা নদীর শিবপুর বটতলা খালের উপর ১৯৮৭ সালের দিকে প্রায় ৩৮ মিটার দীর্ঘ সেতুটি নির্মান করে এলজিইডি। এ সেতু দিয়ে খুকনী, জালালপুর ও স্থল ইউনিয়নের (আংশিক) এলাকার অনন্ত ১২টি গ্রামের সাড়ে ৭ হাজার মানুষ নিয়মিত যাতায়াত করে। প্রায় সাড়ে ৩বছর ধরে সেতুটির বিভিন্ন অংশের পলেস্তরা খসে, রেলিং ভেঙ্গে ও পিলার দেবে গিয়ে ব্যাবহার অনুপযোগি হয়ে পড়েছে। ভারী যানবাহন চলাচলতো দুরের কথা রিক্সা ভ্যানই যাতায়াত করতে পারে না। তারপরও বিকল্প ব্যবস্থা না থাকায় বাধ্য হয়েই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দুর্ভোগে পড়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষকে যাতায়াত করতে হচ্ছে এই ঝুঁকিপূর্ন সেতুটির উপর দিয়ে। বিশেষ করে শহজাদপুর উপজেলা সদর ও খুকনী ইউনিয়ন পরিষদ, শিবপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, স্থল পাকড়াশী ইন্সটিটিউশন এন্ড কলেজ, খুকনী বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয়, খুকনী দারুল উলুম কওমিয়া মাদরাসাসহ এলাকার অন্তত ৯টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও ২৬টি তাঁত কারখানার শত শত তাঁত শ্রমিককে ভোগান্তিতে পড়ে নিয়মিত যাতায়াত করতে হয় এই সেতু দিয়ে।

স্থল পাকড়াশী ইন্সটিটিউশন এন্ড কলেজের শিক্ষার্থী আবু কাউসার, তানজিলা ও মর্জিনা খাতুন এবং তাঁত শ্রমিক জমির উদ্দিন, আবুল হোসেন ও জাকারিয়া হোসেন জানান, প্রায়ই সেতুর রেলিং ও পলেস্তরা খসে খসে পড়ে যায়। সেতুটি ভাঙা শুধু তাই নয়, সেতুর সংযোগ সড়কে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। হেটে পারাপার হতেই ভয় লাগে, তারপরও বিকল্প ব্যবস্থা না থাকায়  ঝুঁকি নিয়েই সেতু পারাপার হতে হয়ে বিদ্যালয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে। এব্যাপারে শিবপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের গভার্নিংবডির সভাপতি এবিএম শামীম হক জানান, এরশাদ সরকারের আমলে নির্মাণ করা সেতুটি তিন-চার বছর ধরে ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। সেতুটির উপর দিয়ে খুকনী, জালালপুর ও স্থল ইউনিয়নের কয়েক হাজার ছাত্রছাত্রী, শিক্ষক, শ্রমিকসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ নিয়মিত চলাচল করে।

এ বিষয়ে খুকনী ইউপি চেয়ারম্যান মুল্লুক চাঁদ মিয়া বলেন, দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের মানুষদের উপজেলা সদর ও ইউনিয়ন পরিষদে যাতাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম শিবপুর সেতু। অতিপুরাতন এ সেতুটি দীর্ঘদিন ধরে ব্যবহার অনুপযোগি হয়েছে। এলাকাবাসির দুর্ভোগের কথা বিবেচনা করে সেতুটি  দ্রুত সংস্কার অথবা নতুন নির্মানের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। এদিকে শিবপুর সেতুটি জনগুরুত্বপূর্ন হলে এলজিইডির সাথে কথা বলে আশু পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে জানালেন শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সেহেলী লায়লা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ