আজ : শুক্রবার | ১লা পৌষ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং | ২৭শে রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯ হিজরী

জেলেদের ভয়ভীতি দেখিয়ে জরিমানা আদায়ের অভিযোগ

jalaবেলকুচি (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুরে যমুনা নদীতে ইলিশ মাছ শিকারী জেলেদের ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগে নৌকার মাঝিসহ ৪ জনকে হাতেনাতে ধরে স্থানীয়রা। পরে তাদের পুলিশে সোপর্দ করা হলেও স্থানীয়দের বিশেষ দেনদরবারের মাধ্যমে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে, এমন অভিযাগ উঠেছে এনায়েতপুর থানা পুলিশের বিরুদ্ধে।

এছাড়া স্থানীয়রা পুলিশের নিকট থেকে নৌকার মাঝিসহ আটক ৪ জনকে জামিনে ছারিয়ে রাখে মাদবাররা। পরে ৪ জনকে ৯৬ হাজার টাকা জরিমানা করে ছেড়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার (১৬ অক্টোবর) বিকেলে এনায়েতপুর থানার অদুরে যমুনা নদীর বোয়ালকান্দির চরে এ ঘটনার অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বেলকুচির কামারপাড়া গ্রামের আবুল কালাম ও পাশ্ববর্তী শাইলদাইর গ্রামের হরমুজ আলী এবং নৌকার মাঝিসহ ৪ জন দুপুরে বোয়ালকান্দির চরে ইলিশ মাছ শিকারী জেলেদের ভয়ভীতি ও চাঁদা দাবী করে। পরে স্থানীয়রা তাদের হাতেনাতে ধরে উত্তম মধ্যম দিয়ে আটকে রেখে পুলিশে খবর দেয়। তারা আরও জানায়, পুলিশের নিকট থেকে স্থানীয় মাদবাররা ঐ ৪ জনকে ছারিয়ে রেখে রাতেই দেন দরবার করে ৯৬ হাজার টাকা জরিমানা করে ছেরে দেয়।

খবর পেয়ে এনায়েতপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এস.আই) রিপন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে নৌকায় করে তাদের ধরে নিয়ে আসে। থানায় পৌঁছার আগেই স্থানীয় কর্তিপয় মরুব্বী ও তাদের স্বজনদের সাথে বিশেষ দেন-দরবার করে ৪ জনকে ছেড়ে দেয় পুলিশ। এ বিষয়ে উপ-পরিদর্শক রিপন বলেন, যমুনায় ইলিশ কেনা নিয়ে বাগবিতন্ডা ও তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে স্থানীয়রা নৌকার মাঝিসহ ৪ জনকে ধরে পুলিশে দিলেও স্থানীয় দু’জন মুরুব্বীর হিল্লায় তাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে, অন্য কোন উদ্দেশ্য নেই।

এনায়েতপুর থানার ওসি রাশেদুল ইসলাম বিশ্বাস বলেন, যমুনায় যারা অবৈধভাবে ইলিশ ধরছে, তাদের কাছ থেকে মাছ কিনতে যারা চায় তারা তো একটু সুযোগ নিবে এটাই স্বাভাবিক। এরকম একটা ঘটনায় তারা জেলেদের ভয় দেখিয়ে মাছ কেনার চেষ্টা করেছিল বলে শুনেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ