আজ : শুক্রবার | ১লা পৌষ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং | ২৭শে রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯ হিজরী

ঈশ্বরদীতে সফল নারী উদ্যোক্তা কৃষাণী বেলী বেগম

Untitled-1 copy.jpg MNঈশ্বরদী (পাবনা) ফ্যীথভৈধখ : ঈশ্বরদী উপজেলার ছলিমপুর ইউনিয়নের জগন্নাথপুর গ্রামের বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদক প্রাপ্ত কৃষক সিদ্দিকুর রহমান ময়েজের স্ত্রী হলেন কৃষাণী বেলী বেগম। ঈশ্বরদীর কৃষিতে নারী উদ্যোক্তাদের মধ্যে অন্যতম সফল কৃষাণী বেলী বেগম।

ইতোমধ্যে তিনি সবজি চাষে জাতীয় পর্যায়ে তৃতীয় স্থান দখল করে পুরষ্কার লাভ করেছেন। কোন প্রকার ঋন বা কর্য ছাড়াই তিনি ১৯৯৫ সাল থেকে দীর্ঘ ২২ বছর নিরলস পরিশ্রম ও মেধাকে কাজে লাগিয়ে আজকের এই অবস্থানে আসতে সক্ষম হয়েছেন।

বেলী বেগম কৃষি কাজে সফলতার স্বীকৃতি স্বরুপ ২০১২ সালে রাজশাহীর ফাদার বক্্র প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে ২০১৩ সালে ভাষা সৈনিক আব্দুল মতিন পুরষ্কার এবং চলতি বছরের শুরুতে সবজি চাষে সফল হিসেবে জাতীয় সবজি পুরষ্কারে তৃতীয় স্থান অধিকার করেছেন। জাতীয় সবজি মেলায় বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী ও কৃষি মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মোঃ মকবুল হোসেন এমপি তার হাতে পুরষ্কার তুলে দেন।

বেলী বেগম বলেন, কৃষি কাজে প্রবেশের প্রথম দিকে আমাকে সামাজিক কিছু বিরুপ কথাবার্তার মধ্যেই এগুতে হয়েছে, অবশ্য এখন আর এব্যাপারে কোন সমস্যা নেই। কৃষিকে আমি চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহণ করাতেই সফলতা বয়ে আনতে পেরেছি। পুরুষদের সাথে পাল্লা দিয়ে কৃষি কাজে নারীরাও যে এগিয়ে যেতে পারে আমি তা প্রমাণ করেছি।

তিনি আরও বলেন, নিজের ৯ বিঘা জমি ছাড়াও আরও ১৭ বিঘা জমি খাজনা নিয়ে বিভিন্ন ধরনের সবজি চাষ ও ফলমূল আবাদ করছেন। বর্তমানে নিজ খামারে ১৪ বিঘা জমিতে পেয়ারার বাগান রয়েছে। এই বাগান থেকে এবছর ২০ লাখ টাকার পেয়ারা বিক্রি করবেন বলে ধারণা করছেন।

তিনি বলেন, দেড় বিঘা আলু, ৩ বিঘা লাউ, ৫ বিঘা টমেটো, ৭ বিঘা গাজর ও সাড়ে চার বিঘা ফুলকপি আবাদ করছেন। এসব সবজির ফলাফলও বেশ ভালো। বেলী বেগম বলেন, ২০১৩-১৪ সালে হরতাল ও অবরোধের সময় পরিবহন সমস্যার কারণে তিনি আর্থিক ভাবে ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছেন।

ঈশ্বরদী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ রওশন জামাল বলেন, বেলী বেগম পরিশ্রম, ধৈর্য্য, অধ্যাবসায়, সাহস ও মেধাকে কাজে লাগিয়ে সংগ্রাম করে সাহসীকতার মধ্য দিয়ে কৃষি খামার করে তিনি একজন সফল নারী উদ্যোক্তা ও খামারী হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছেন। এবছর জাতীয় সবজি পুরষ্কারে ভূষিত হয়েছেন। পরিশ্রম মানুষকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যায় তার বাস্তব প্রমাণ হলো বেলী কৃষি খামারের স্বত্তাধিকারী কৃষাণী বেলী বেগম। কঠোর পরিশ্রম করে বেলী বেগম একজন মডেল খামারী হিসেবে ইতোমধ্যে ঈশ্বরদীতে পরিচিতি লাভ করেছেন।

বেলী বেগমের সফলতা দেখে ছলিমপুর ইউনিয়নের জগন্নাথপুর গ্রামের নারীরাও রীতিমতো প্রতিযোগিতা মূলক কৃষি কাজে এগিয়ে এসেছেন। পরিশ্রম, ধৈর্য্য, অধ্যাবসায়, সাহস ও মেধাকে কাজে লাগাতে পারলে বেলী বেগমের মতো সকলেই এক সময় ক্রমান্বয়ে উপরে উঠতে থাকবে। তিনি বলেন, সরেজমিনে পরিদর্শন করে দেখা গেছে সবজি ও পোল্ট্রি চাষি বেলী বেগমের খামারটি পরিপাটি ভাবে সাজানো গোছানো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ